1. admin@dainikdesherkontho.com : admin :
বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৫১ পূর্বাহ্ন

টিউবওয়েলের হাতল চুরির অভিযোগ’, গাছে বেঁধে মারপিট করে শিশুর মাথা ন্যাড়া!

দৈনিক দেশের কন্ঠ
  • Update Time : বুধবার, ৩১ মার্চ, ২০২১
  • ১১২ Time View

গাইবান্ধা প্রতিনিধি | টিউবওয়েলের হাতল চুরির অভিযোগে গাইবান্ধায় ১২ বছরের এক শিশুকে গাছের সঙ্গে নির্যাতন করেছে প্রতিবেশীরা।

গাইবান্ধা সদরের ঘাগোয়া ইউনিয়নের একটি গ্রামে শিশুটিকে গাছের সঙ্গে বেঁধে বেদম প্রহারের পর তার মাথা ন্যাড়া করে দেয়া হয়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে শিশুটিকে উদ্ধারের পর স্থানীয় ইউপি সদস্যের জিম্মায় দেয়।

শিশুটির পরিবার ও প্রতিবেশীরা জানান, মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) সকালে ঘাগোয়া ইউনিয়নের সুলতানকে (ছদ্মনাম) বাড়ি থেকে ডেকে নেয়া হয়। এরপর প্রতিবেশী জাহানারা বেগম তার টিউবওয়েলের হাতল চুরির অভিযোগে স্থানীয় আরও কয়েকজনের সহযোগিতায় সুলতানকে গাছের সঙ্গে বেঁধে বেদম প্রহারের এক পর্যায়ে শিশুটির মাথা ন্যাড়া করে দেয়।

পরিবারের অভিযোগ, শিশুটি চুরি করেছে তা কেউ না দেখে সন্দেহ করে তার ওপর নির্যাতন করা হয়।
৯৯৯’র মাধ্যমে খবর পেয়ে গাইবান্ধা সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এসময় শিশুটি আর কখনও চুরি না করার অঙ্গীকার করলে স্থানীয় ইউপি সদস্য বাদশা মিয়ার জিম্মায় সুলতানকে ছেড়ে দেয় পুলিশ।

বুধবার সকালে শিশুটির বাড়িতে গিয়ে জানা যায়, সুলতানকে ঢাকায় পাঠিয়েছে তার স্বজনরা। সুলতানের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, তার বাবা প্যারালাইজড অবস্থায় অচল হয়ে পড়ে আছেন, মা বাক প্রতিবন্ধী।

তবে সুলতানের প্রতিবেশীরা জানান, অভাবের তাড়নায় শিশুটি প্রায়ই আশপাশের বাড়ি থেকে থালা-বাসন, টিউবওয়েলের হাতলসহ বিভিন্ন জিনিস চুরি করে। জাহানারা বেগমের বাড়ি থেকে টিউবওয়েলের একটি হাতল চুরির পর শিশুটি হাতলটি ফেরতও দেয় বলে জানান আশপাশের লোকজন। জাহানার বাড়িতে গিয়ে তার টিউবওয়েলে হাতলটি লাগানো দেখা যায়। তারপরও শিশুটিকে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারাপিট ও মাথা ন্যাড়া করে দেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন স্থানীয়রা।

এ ঘটনায় কথা বলতে জাহানারা বেগমের বাড়িতে গেলে তার ঘরে তালা ঝুলতে দেখা যায়। তার বাড়িতে অন্য কাউকে পাওয়া যায়নি।
স্থানীয় ইউপি সদস্য বাদশা মিয়া বলেন, গত ৫ বছরে তিনি ওই শিশুর বিরুদ্ধে চুরির কোনো অভিযোগ শোনেননি। মঙ্গলবার স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি ও পুলিশের উপস্থিতিতে শিশুটি ভুল স্বীকার করে সবার কাছে মাফ চায়। এরপর পুলিশ শিশুটিকে তার জিম্মায় দেয়।

এ ঘটনায় শিশুটিকে নির্যাতন বা চুরির ঘটনায় কোনো পক্ষ থেকেই থানায় অভিযোগ করা হয়নি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এই নিউজ পোর্টালের কোন লেখা ছবি,ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি ও দণ্ডনীয় অপরাধ। © All rights reserved © 2021
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: FT It